This page was exported from HajjSangbad.Com [ http://hajjsangbad.com ]
Export date: Sat Jun 24 19:02:00 2017 / +0000 GMT


অতিরিক্ত ১০ হাজার কোটা পাওয়ার আশাবাদ


৫ হাজার হজযাত্রীর কোটা বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় দেয়া হবে


নিজস্ব প্রতিবেদক,২১ জুন ২০১৬,মঙ্গলবার, ০০:০০

র্মমন্ত্রী অধ্যক্ষ মতিউর রহমান বলেছেন, সরকারি ব্যবস্থাপনার যে পাঁচ হাজার হজযাত্রীর কোটা খালি আছে তা সৌদি সরকারের সাথে আলোচনা করে বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ছেড়ে দেয়া হবে। এ ছাড়া সৌদি সরকারের কাছে অতিরিক্ত ১০ হাজার কোটার জন্য যে আবেদন করা হয়েছে তাও পাওয়া যাবে বলে জোরালোভাবে আশা করছি।তিনি বলেন, এইসব কোটা বণ্টনে কোনো রকমের সমস্যা হবে না। এ বছর হজ ব্যবস্থাপনায় বাংলাদেশ যাতে এক নম্বর স্থানে থাকে সেজন্য ধর্ম মন্ত্রণালয় সর্বাত্মক চেষ্টা করে যাবে। হজ এজেন্সিসহ সবাইকে একযোগে এজন্য চেষ্টা চালাতে হবে। হজ এজেন্সিস অ্যাসোসিয়েশন অব বাংলাদেশ (হাব) আয়োজিত ইফতার মাহফিলে গতকাল প্রধান অতিথির বক্তৃতায় ধর্মমন্ত্রী এ কথা বলেন।হাবের সভাপতি মো: ইব্রাহীম বাহারের সভাপতিত্বে ও সহসভাপতি ফরিদ আহমেদ মজুমদারের পরিচালনায় অফিসার্স কাবে আয়োজিত ইফতার মাহফিলে আরো বক্তব্য রাখেন ধর্ম মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মো: শহীদুজ্জামান, হাবের মহাসচিব শেখ আব্দুল্লাহ, হজ অফিসের পরিচালক ড. আবু সালেহ মোস্তফা কামাল।এ সময় উপস্থিত ছিলেন, হাবের সিনিয়র সহসভাপতি মো: হেলাল, সাবেক সিনিয়র সহসভাপতি আব্দুল কবির খান জামান, প্রতিষ্ঠাতা মহাসচিব মাওলানা ইয়াকুব শরাফতী, সাবেক মহাসচিব এম এ রশীদ শাহ সম্রাট, হাবের যুগ্ম মহাসচিব মাওলানা মোজাম্মেল হোসেন কামাল, ইসি সদস্য মো: আবু সালেহ রাজী, আব্দুল মতিন ভূঁইয়া, সাবেক ইসি সদস্য মাওলানা ফজলুর রহমান, আফতাব উদ্দিন আহমেদ প্রমুখ।ধর্মমন্ত্রী বলেন, হজ ব্যবস্থাপনার ব্যাপারে আমি সম্পূর্ণ সজাগ রয়েছি। হজযাত্রীদের ৯৮ ভাগই যে এজেন্সিগুলো সংগ্রহ করে সেটাও আমার মাথায় রয়েছে। তিনি বলেন, গত বছর আমরা হজ ব্যবস্থাপনা নিয়ে টেনশনে ছিলাম। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আল্লাহর মেহেরবানিতে সফল হয়েছি। তিনি বলেন, সরকারি ব্যবস্থাপনায় যে পাঁচ হাজার কোটা খালি আছে তা সৌদি সরকারের সাথে আলোচনা করে বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ছেড়ে দেবো। আর অতিরিক্ত ১০ হাজারের জন্য যে আবেদন করেছি সেটাও পাব। এ ব্যাপারে আমার আস্থা রয়েছে। তিনি বলেন, হজ ব্যবস্থাপনাকে সুষ্ঠু করার জন্য হজ এজেন্সিগুলোর পরামর্শ নিয়ে কাজ করব। আপনারা আমাদের পরামর্শ দেবেন এবং কাজে সহযোগিতা করবেন। তিনি প্রতি এজেন্সিকে দু'টি করে বারকোর্ড দেয়া এবং এজেন্সিগুলোর বাকি পাওনা টাকা পরিশোধের ব্যাপারেও আশ্বাস প্রদান করেন।সভাপতির বক্তব্যে হাব সভাপতি মো: ইব্রাহীম বাহার ১০ হাজার অতিরিক্ত কোটা দ্রুত আদায়ে উদ্যোগ নেয়া, ন্যায়নীতির ভিত্তিতে কোটা বণ্টন, গত বছরের হজে অনিয়মের জন্য অভিযুক্তদের সাধারণ ক্ষমা ঘোষণা বিশেষ করে শেষের অতিরিক্ত পাঁচ হাজার কোটার হাজীদের ব্যবস্থাপনার ত্রুটি ক্ষমা করে দেয়া এবং একটি ফাইটে সর্বোচ্চ তিনটি মোয়াল্লেমের হাজী পরিবর্তনের শর্ত বাতিল করার দাবি জাক্ষানান।মহাসচিব শেখ আব্দুল্লাহ সরকারি খালি কোটা বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ছেড়ে দেয়া এবং এজেন্সি প্রতি দু'টি করে বারকোড দেয়ার দাবি জানান।উল্লেখ্য, চলতি বছর বাংলাদেশের জন্য নির্ধারিত হজের কোটা ১ লাখ ১ হাজার ৭৫৮ জন। এর মধ্যে ১০ হাজার সরকারি ব্যবস্থাপনার জন্য নির্ধারিত। তবে সরকারি ব্যবস্থাপনায় মাত্র পাঁচ হাজারের মতো হজযাত্রী নিবন্ধন করেছে। এ দিকে বেসরকারি ব্যবস্থাপনায় ৫০ হাজারের বেশি অতিরিক্ত হজযাত্রী প্রাক নিবন্ধন করে রেখেছে। এই অবস্থায় ধর্ম মন্ত্রণালয় সৌদি সরকারের কাছে অতিরিক্ত ১০ হাজার কোটার জন্য আবেদন করেছে।
ইফতার মাহফিলের আগে একই স্থানে হাবের বার্ষিক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। - See more at: 

Post date: 2016-06-21 17:35:44
Post date GMT: 2016-06-21 17:35:44
Post modified date: 2016-06-21 17:35:44
Post modified date GMT: 2016-06-21 17:35:44
Powered by [ Universal Post Manager ] plugin. HTML saving format developed by gVectors Team www.gVectors.com